1. admin@moulvibazarsongbadprotidin.com : moulvibazarsongbadprotidin.com :
বৃহস্পতিবার, ২৯ অক্টোবর ২০২০, ১২:০৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
মুজিববর্ষে চলমান বিভিন্ন প্রকল্পের মাধ্যমে সরকার সকল গৃহহীনদের জন্য গৃহ নির্মাণ করবে মহানবী সাঃ এর ব্যঙ্গচিত্র প্রদর্শনের প্রতিবাদে তালামীযে ইসলামিয়ার প্রতিবাদ ও বিক্ষোভ মিছিল জেলা প্রশাসন ও প্রতিবন্ধী সেবা ও সাহায্য কেন্দ্রের আয়োজনে ৫৭ জন প্রতিবন্ধীকে হুইল চেয়ার বিতরন ৪১ তম জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সপ্তাহ এবং বিজ্ঞান মেলা ২০২০ অনুষ্ঠিত মারজান স্মৃতি সুলতানপুর ফুটবল টুর্নামেন্ট এর জার্সি বিতরণ অনুষ্ঠান সম্পন্ন মৌলভীবাজার সদর ও রাজনগর উপজেলায় শারদীয় দুর্গাপূজার মন্ডপ পরিদর্শনে জেলা প্রশাসক মৌলভীবাজারে মসজিদ ভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কার্যক্রমের বাস্তবায়ন বিষয়ক প্রশিক্ষণ কর্মশালার উদ্বোধন সৈয়দা জোহরা আলাউদ্দিন এমপি মৌলভীবাজারের বিভিন্ন পূজামন্ডপ পরিদর্শন করেন জেলা গোয়েন্দার বিশেষ অভিযানে ১৫০পিছ ইয়াবাসহ গ্রেফতার ২ নবনির্বাচিত জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কে জেলা আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা

করোনা ভ্যাকসিন আবিষ্কারের কথা জানাতে গিয়ে আবেগ আপ্লূত হয়ে কান্নায় ভেঙে পরলেন ডাঃ আসিফ ;

  • আপডেট: শুক্রবার, ৩ জুলাই, ২০২০
  • ১২০ বার পড়া হয়েছে

অনলাইন ডেস্কঃ
নতুন করোনাভাইরাস (কভিড-১৯) রোগের টিকা (ভ্যাকসিন) উদ্ভাবনের দাবি করেছে ওষুধ প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান গ্লোব ফার্মাসিউটিক্যালস গ্রুপ অব কোম্পানিজ লিমিটেড’র সহযোগী প্রতিষ্ঠান গ্লোব বায়োটেক লিমিটেড। বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো কোনো প্রতিষ্ঠান এই টিকা উদ্ভাবনের দাবি করল।

বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজধানীর তেজগাঁওয়ে প্রতিষ্ঠানটির প্রধান কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে গ্লোব বায়োটেক লিমিটেডের পক্ষ থেকে এসব তথ্য জানানো হয়। সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, টিকা উদ্ভাবনে সার্বিক তত্ত্বাবধানে ছিলেন প্রতিষ্ঠানের সিইও ড. কাকন নাগ এবং সিওও ড. নাজনীন সুলতানা। প্রতিষ্ঠানটি গত ৮ মার্চ এই টিকা তৈরির কাজ শুরু করে। গ্লোব বায়োটেক লিমিটেডের রিসার্চ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট ডিপার্টমেন্টের প্রধান ডা. আসিফ মাহমুদ।
ডা. আসিফ মাহমুদ ভ্যাকসিনটি সম্পর্কে বিস্তারিত তুলে ধরেন। কথা বলতে গিয়ে তিনি এক পর্যায়ে আবেগে কান্না ধরে রাখতে পারেননি। দ্রুত মাইক্রোফোন ত্যাগ করে চোখের জল আড়াল করার চেষ্টা করেন। কিন্তু কেন এই কান্না? আসিফ সারাবিশ্বের ভ্যাকসিনের অগ্রগতি সম্পর্কে বলতে থাকেন। প্রতিটি কম্পানির ভ্যাকসিন আবিস্কারের সময়কাল উল্লেখ করে বলেন। ‘সারাবিশ্ব যদি পারে তাহলে আমরা কেন পারবো না? আমরা বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ভ্যাকসিনের আশায় বসে থাকবো তা কেন হবে? তারা কবে দেবে আর আমরা কবে নেবো সে আশায় বসে থাকলে চলবে না।’
আসিফ এসময় দৃঢ় কণ্ঠে বলেন, ‘আমাদের নিজস্ব একটি ভ্যাকসিন দরকার, যেন আমাদের অন্যের আশায় বসে না থেকে প্রত্যেকটি মানুষ ভ্যাকসিন গ্রহণের সুযোগ পায়।’

আসিফ বলেন, ‘আমরা আর কোনো চাকরি হারাতে চাই না, আমরা আর কোনো সঞ্চয় হারাতে চাই না, আমরা আর কোনো সুখী সময় হারাতে চাই না, আমাদের মধ্য থেকে আমরা আর কোনো মানুষকে হারাতে চাই না। উই কান্ট এফোর্ড টু লুজ এনিমোর… বলেই কান্নায় ভেঙে পড়েন আসিফ।’
আসলেই করোনায় আমরা কতকিছুই হারিয়েছি, এই হারানোর বেদনা এতো গভীরে দাগ ফেলে যাচ্ছে যা আসলে অনেকেই সামলে নিতে পারছেনা। মানুষ বাসা ভাড়া দিতে পারছে না, মানুষ চাকরি হারাচ্ছে। এই করোনা কত প্রিয় স্বজনকে কেড়ে নিয়েছে। আসিফ হয়তো এসবের আর কিছুই হারাতে চান না। এজন্যই জান-প্রাণ দিয়ে করোনার ভ্যাকসিনের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন। কথা বলতে গিয়ে আসিফের আবেগের কান্না ছুঁয়ে গেছে পুরো দেশবাসীকে। তাই তো প্রার্থনা জোড়ালো হয়েছে, ‘এবার আমাদের ভ্যাকসিন হচ্ছে হোক।’  

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© স্বর্বস্বত্ব সংরক্ষিত।
এই ওয়েবসাইটের লেখা, ছবি, ভিডিও
অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

প্রযুক্তি সহায়তায় মাল্টিকেয়ার